স্ত্রীকে রানি বানিয়ে রাখেন গেইল

আইপিএলে যে সকল বিদেশি প্লেয়াররা জনপ্রিয়তার শিখরে রয়েছে তাদের মধ্যে অন্যতম ক্রিস গেইল। তার বিধ্বংসী ব্যাটিং দেখার জন্য মুখিয়ে থাকেন গেইল ভক্তরা।

এবারের আইপিএলে দুরন্ত ব্যাটিং করেছেন তিনি। যদিও তার দল কিংস ইলেভেন পঞ্জাব প্রতিযোগিতা থেকে বিদায় নিয়েছেন। ২২ গজে শুধু বিধ্বংসী ব্যাটিং নয়, গেইলের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে জানার কৌতুহলও তার ফ্যানেদের কম নয়।

গেইলের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে আলোচনা হবে আর ইউনিভার্স বসের স্ত্রী নতাসা বেরিজকে নিয়ে আলোচনা হবে না , তা হতেই পারে না। গেইলের স্ত্রী খুবই হট অ্যান্ড সেক্সি। কোনও সুপার মডেলের থেকে কম যান না নতাসা।স্ত্রীকে রানির মত রাখেন গেইল। চলুন আইপিএলের মাঝেই জানা যাক ক্রিস্টোফার হেনরি গেইলের গ্লামারাস স্ত্রী নতাসা বেরিজ সম্পর্কে।

নতাসা বেরিজ বিখ্যাত ক্যারেবিয়ান ক্রিকেটার ক্রিস গেইলের স্ত্রী। দীর্ঘদিন সম্পর্কে থাকার পর অবশেষে তারা বিয়ে করেন। বর্তমানে তাদের একটি কন্যা সন্তানও রয়েছে।১৯৮৬ সালের ২১ অগাস্ট সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসে জন্ম গ্রহণ করেন নতাসা বেরিজ। সেখানেই তার লেখা পড়া ও বেড়ে ওঠা।

পেশায় নতাসা বেরিজ একজন ফ্যাসন ডিজাইনার। ফ্যাসন দুনিয়ায় তার যথেষ্ট নাম রয়েছে। ‘আলট্রা’ নামে তার নিজস্ব ফ্যাসন জিজাইনিংয়ের ব্যবসা রয়েছে।তারকা ক্রিকেটার ক্রিস গেইলের সঙ্গে দীর্ঘ দিন ধরে প্রেম করেন নতাসা বেরিজ। দীর্ঘ বছরের সম্পর্কের পর অবশেষে ২০০৯ সালে দুজ বিয়ে করেন।

নতাসা দেখতে খুব সুন্দরী। তার রূপ ঘায়েল করে সকলকেই। গেইল ভালোবেসে তার স্ত্রীকে ‘তাসা’ বলে ডাকেন। যা খুব পছন্দ করেন নতাসাও।গেইল নতাসাকে এতটাই ভালোবাসেন যে বিলাস বহুল বাংলো কিনে দিয়েছেন। একইসঙ্গে নতাসা কোনও কিছু চাইলে সেকেন্ডের মধ্যে স্ত্রীর ইচ্ছা পূরণ করেন গেইল।

ক্রিস গেই সবসময় নতাসা সৌন্দর্যের প্রশংসা করেন। নতাসাকে পুরো রানির মতো রেখেছেন ইউনিভার্স বস। দুজনের মধ্যে সম্পর্কের রসায়নও খুব ভাল।২০০৯ সালে বিয়ের পর ২০১৬ সালে একটি কন্যা সন্তান হয় ক্রিস গেইল ও নতাসার। তার নাম রাখেন ক্রিস অ্যালিনা গেইল।

পেশায় ফ্যাশন ডিজাইনার হওয়ায় নতাসা নিজে একটি ফ্যাসন কার্নিভালের আয়োজন করেন। যার নামে আলট্রা কার্নিভাল। যেখানে রং বেরঙের পোশাকে সকলে অংশ গ্রহণ করেন।

নতাসা বেরিজের এই কার্নিভালে প্রতি বছর নিজেও অংশগ্রহণ করেন তিনি। এই কার্নিভালে সপরিবারে অংশ গ্রহণ করেছেন গেইলও। তাদের লুকস সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরালও হয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*