প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছে কলেজের শিক্ষার্থীরা

সাত দফা দাবি কার্যকর না হওয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধনে কলেজের চলমান সমস্যা সমাধানে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ছাত্রছাত্রীরা।

বুধবার সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধনে অংশ নেয় তারা। মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা ‘সাত কলেজের দাবি, মেনে নাও ঢাবি,’ ‘সময়মত পরীক্ষা নাও, নইলে মোদের চাকরি দাও,’ ‘বঙ্গবন্ধুর বাংলায় বৈষম্যের ঠাই নাই’ ইত্যাদি স্লোগান দিতে থাকে।

শবনম জান্নাত নামের শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, বারবার দাবি জানিয়ে ও আন্দোলন করার পরও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সুষ্ঠু কোনো সমাধান দিতে পারেনি। উল্টো শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি বেড়েছে।

তাদের সাত দফা দাবি হলো- ১. সকল সেশনকে পরবর্তী সেশনে ক্লাস করার কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে, ২. অনার্স ২০১৫-১৬ ও ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের পরীক্ষা অতি দ্রুত নিতে হবে এবং ফল প্রকাশ করতে হবে, ৩. সকল বর্ষের ফলাফল ৯০ দিনের মধ্যে প্রকাশ করতে হবে, ৪. ডিগ্রী ২০১২-১৩ বর্ষের চলমান বিশেষ পরীক্ষা অতি দ্রুত নিয়ে এক মাসের মধ্যে ফল প্রকাশ করতে হবে।

৫. ২০১৭-১৮ ও ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ২.০০/২.২৫/২.৫০ পয়েন্টে পরবর্তী বর্ষে প্রমোটেডের নিয়ম বাতিল করতে হবে এবং তিন বিষয় পর্যন্ত অকৃতকার্য শিক্ষার্থীদের প্রমোটেড করতে হবে, ৬. সকল ইম্প্রুভ পরীক্ষা অতি দ্রুত নিতে হবে এবং ডিগ্রী অনার্স মাস্টার্সসহ সকল বর্ষের ফলাফল গণহারে অকৃতকার্য হওয়ার কারণসহ খাতা পুণঃমূল্যায়ন করতে হবে, ৭. প্রিলি মাস্টার্স ২০১৫-১৬ সেশনের প্রথম পর্বের চলমান পরীক্ষা নিয়ে অতি দ্রুত ফল প্রকাশ করতে হবে এবং একই সেশনে একের অধিক বর্ষের শিক্ষার্থী রাখা যাবে না।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*