বিশ্ববাজারের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাড়ছে সোনার দাম

চলতি বছর করোনাভাইরাসের আক্রমণের কারণে বিশ্বের সোনার বাজার ঊর্ধ্বমুখী। যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আবারো বেড়েছে সোনার দাম। বিশ্ববাজারে সোনার দাম বেড়েছে প্রায় ৪ শতাংশ। এর ফলে ১৯৫০ ডলার ছাড়িয়েছে প্রতি আউন্স সোনার দাম।

এর পরিপ্রেক্ষিতে দেশের বাজারেও বাড়ছে সোনার দাম। দু-একদিনের মধ্যে এই সিদ্ধান্ত হবে। নতুন করে প্রতি ভরিতে স্বর্ণের দাম আড়াই হাজার টাকার মতো বাড়ানো হতে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির (বাজুস) সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা।

বাজুস সম্পাদক জানান, আমেরিকার নির্বাচন নিয়ে এক ধরনের উত্তেজনা ও অনিশ্চয়তা বিরাজ করছে। ডলারের দরপতন হয়েছে। এ কারণে হঠাৎ করে সোনার দামে বড় উত্থান হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে বিশ্ববাজারে সোনার দাম বাড়ার এটিই একমাত্র প্রধান কারণ।

এদিকে গত সপ্তাহের শুরুতে বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স সোনার দাম ছিল ১৮৭৮ ডলার। দফায় দফায় বেড়ে সপ্তাহে শেষে প্রতি আউন্স সোনার দাম হয়েছে ১৯৫১ দশমিক ৭০ ডলার। এতে সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি আউন্স সোনার দাম বেড়েছে ৭৩ ডলার বা ৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ।

এর মাধ্যমে দুই মাসের মধ্যে বিশ্ববাজারে সোনার দাম সর্বোচ্চ পর্যায়ে উঠেছে। সেই সঙ্গে গত জুলাইয়ের পরে এই প্রথম এক সপ্তাহে স্বর্ণের দাম প্রায় ৪ শতাংশ বাড়ল।

বিশ্ববাজারে দাম বাড়ায় ১৫ অক্টোবর থেকে দেশের বাজারেও সোনার দাম বাড়ানো হয়। এ দফায় ভালো মানের অর্থাৎ ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) সোনার দাম ২ হাজার ৩৩৩ টাকা বাড়িয়ে নির্ধারণ করা হয় ৭৬ হাজার ৩৪১ টাকা। ২১ ক্যারেটের সোনা ৭৩ হাজার ১৯২ টাকা, ১৮ ক্যারেটের ৬৪ হাজার ৪৪৪ টাকা ও সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি ৫৪ হাজার ১২১ টাকা নির্ধারণ করা হয়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*