আমায় পোশাক খুলে উত্তেজিত করতে বলে সাজিদ

বাঙালি অভিনেত্রী রেচেল ওয়াইটের বিস্ফোরক মন্তব্যে বছর দুয়েক আগে ভরে গিয়েছিল সংবাদ শিরোনাম। বাড়িতে ফিল্ম সংক্রান্ত মিটিংয়ের অজুহাতে বলিউড পরিচালক রেচেলকে বাড়িতে যৌন হেনস্তা করেছিলেন।

এমনই অভিযোগে মি টু আন্দোলনে আওয়াজ তুলেছিলেন তিনি। সাজিদ খানের বিরুদ্ধে সেই সময় অনেকেই অভিযোগ তুলেছিলেন সেই সময়।

মুম্বইয়ে গিল্ড থেকে চিঠিও পাঠানো হয়েছিল নানা অভিযোগের দরুণ। সাজিদের কেচ্ছা একে একে উঠে আসে সোশ্যাল মিডিয়ার ফিড জুড়ে।

রেচেল ওয়াইটের সাজিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন যৌন হেনস্তার। হামশকল ছবির কাস্টিংয়ের জন্য নিজের বাড়িতেই রেচেলকে ডেকে পাঠিয়েছিলেন সাজিদ।

বাড়িতে মিটিং শুনে খানিক ঘাবড়ে গিয়েছিলেন রেচেল। সাজিদ নিজেই তাঁকে বলেছিলেন, চিন্তা কোনও বিষয় নেই, কারণ তাঁর মা বাড়িতেই থাকেন।

সাজিদের মা বাড়িতে থাকবে শুনেই পরিচালকের বাড়িতে মিটিংয়ের জন্য রাজি হন রেচেল। মিটিংয়ের দিন সাজিদের বাড়ি পৌঁছতেই তাঁকে সাজিদের ঘরে গিয়ে বসার জন্য বলেন বাড়ির এক কর্মী।

সাজিদের বেডরুমে গিয়ে তিনি দেখেন, সাজিদ ট্রেডমিলে ওয়ার্ক আউট করছেন। মিটিংয়ের আগে সাজিদকে ট্রেডমিলে দেখে খানিক অবাক হয়েছিল রেচেল।

রেচেলকে দেখতেই সাজিদ তাঁকে নিজের সামনে রেচেলকে এসে ট্রেডমিলের সামনে আসতে বলেন। রেচেল তাঁর কথামত ট্রেডমিলের সামনে যেতেই সাজিদের অশ্লীল আচরণের পর্ব শুরু হয়।

হঠাৎই রেচেলের স্তন নিয়ে আলোচনা শুরু করেন সাজিদ। কথাগুলি এড়িয়ে যেতেই সাজিদ তাঁকে পোশাক খুলে ফেলতে বলেন। কারণ হামশকলের চিত্রনাট্য অনুযায়ী, অভিনেত্রীদের বিকিনি পরতে হবে।

তাই সাজিদ তাঁকে বিকিনিতে দেখতে চান। রেচেল সরাসরি নাকোচ করে দিয়ে বলেন, “আপনাকে আমি আগেই বিকিনি ছবি পাঠিয়ে দিয়েছি। আপনার অফিসে বিকিনি পরে হাঁটতে রাজি আছি কিন্তু এখানে নয়।”

সাজিদ উল্টে তাঁকে বলেন, “দেখ এসব নিয়ে আমার কোনও নায়িকারাই সমস্যা সৃষ্টি করেনি। আর তুমি যদি আমায় সিডিউস করতে পারো তাহলে ছবির চরিত্রটি তোমার।”

এরপরই রেচেল এই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়ে সাজিদের বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসেন। প্রতিটি কথা রেচেল নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে প্রকাশ্যে আনেন।

রেচেলের পাশাপাশি অভিনেত্রী দিয়া মিরজা, লারা দত্ত, সিমরান সুরি, সলোনি চোপড়া, বলিউড সাংবাদিক করিশ্মা উপাধ্যায়, এনারা সাজিদের বিরুদ্ধে অশ্লীল আচরণের অভিযোগ এনেছিলেন

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*