অভিষেকের গলায় মালা দিয়েছেন ঐশ্বরিয়া, সালমানের প্রতিক্রিয়া যা ছিল

বলিউডে সর্বাধিক চর্চিত সম্পর্কের খবর হল সালমান খান ও ঐশ্বর্য রাই বচ্চন। তাঁরা একে অন্যের সঙ্গে টানা দুবছর চুটিয়ে প্রেম করলেও খবরের শিরোনামে সব থেকে বেশি জায়গা করে নিয়েছিল বিচ্ছেদের খবর। যা আজও সলমন খান ও ঐশ্বর্যের জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে।

একের পর এক সম্পর্কে এরপর সালমান জড়ালেও কোথাও গিয়ে যেন সলমন ও ঐশ্বর্য ম্যাজিক আজও ভুলতে পারেনি ভক্তরা। তবে ঐশ্বর্যের বিয়ের খবরে সালমান খানের প্রতিক্রিয়া কী ছিল!

সালমান খানের সঙ্গে ঐশ্বর্যের সম্পর্ক নিয়ে জল ঘোলা হলেও পরবর্তীতে ঐশ্বর্যের বিয়ের খবর যেন সব গুঞ্জণকেই ধামাচাপা দিয়েছিল। বিয়ের খবরে মন ভেঙেছিল সালমানের।

একাধিক সাক্ষাৎকারে তখন সালমান খানকে একটাই প্রশ্নের সন্মুখীন হতে হত, ঐশ্বর্যের বিয়ে নিয়ে তাঁর কী মতামত। একবার সালমান খান সাফ জানিয়েছিলেন, তিনি এই বিয়ের খবরে খুব খুশি।

পাশাপাশি তিনি এও জানিয়েছিলেন যে অভিষেক খুব ভালো ছেলে। ভালো পরিবারও, তাই এই বিয়ের সিদ্ধান্তে ঐশ্বর্য ভালো থাকবে। ঐশ্বর্য যাতে সুখী হয়, সেই কমনাই করেন সলমন খান।

যদিও বিয়ের পর এই মন্তব্য করলেও এর বেশ কিছু বছর পর আরও এক সাক্ষাৎকারে তিনি এর বিরুপ মন্তব্য করে বসেন। সেখানে তিনি জানান, অভিষেককে তিনি তোয়াক্কাই করেন না।

ঐশ্বর্যের যোগ্য নন অভিষেক, তাই ঐশ্বর্ষের বিবাহ বিচ্ছেদ হলেও তিনি বচ্চন বধূকে গ্রহণ করতে রাজি রয়েছেন। একের পর এক বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে এই সম্পর্কের আঁচ আরও যেন ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র।

যদিও বিচ্ছেদ নিয়ে একাধিক অভিষোগ হেনেছিলেন ঐশ্বর্য, যা পরবর্তীতে সালমান খান শিকারও করেছিলেন। সলমনের জন্য হাত থেকে চলে যাচ্ছিল ছবি, হানি হচ্ছিল সন্মান।

যদিও পরবর্তীতে ঐশ্বর্যের জীবনে একাধিক ওঠা পড়া এলেও, বলিউড সেভাবে আর ফিরে পায়নি তাঁকে। বিয়ের পরও সম্পর্কে উঠেছিল একাধিক ঝড়।

একটা সময় অভিষেকের সঙ্গেও বিবাহ বিচ্ছেদের পর্যায় চলে গিয়েছিল সম্পর্ক। কিন্তু পরিস্থিতির সঙ্গের তা সামলে উঠেছিলেন সেই জুটি।

বর্তমানে ঐশ্বর্য সুখে সংসার করলেও, সালমানের জীবনে ঘিরে আজও সেই একই প্রশ্ন ঘুরে ফিরে আসে, ঐশ্বর্যর জন্যই কী বিয়ে করলেন না ভাইজান।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*