৬ মাসের প্রেমেই সানিয়াকে নিয়ে হোটেলে শাহিদ, ফাঁস করেন হোটেল কর্মী

বলিউড তারকাদের সঙ্গে ক্রীড়া জগতের তারকাদের প্রেমের সম্পর্ক নতুন নয়। ক্রিকেট থেকে শুরু করে টেনিস, নানা ক্ষেত্রে বারবার সামনে উঠে এসেছে সেই তথ্য।

তাদের মধ্যে কেউ বিয়ে করেছেন, আবার ক্রও সম্পর্ক পরিণতি পায়নি। কারও সম্পর্ক নিয়ে শুধু থেকে গেছে গুঞ্জন।

তেমনই শোনা যায় টেনিস সুন্দরী সানিয়া মীর্জার সঙ্গে একসময় প্রেমের সঙ্গে ছিল বলিউডের অন্যকম মাচো ম্যান শাহিদ কাপুরের। তাদের সম্পর্ক পরিণতি না পেলেও, চলুন জানা যাক বলিউড ও ক্রীড়া জগতে কতটা পারদ চড়েছিল সানিয়া-শাহিদের প্রেম নিয়ে।

বিয়ের আগে বলিউড তারকা শাহিদ কাপুরের একাধিক প্রেমের গল্পে বি টাউনে কান পাতলেই শোনা যায়। সেই তালিকায় রেছে প্রিয়ঙ্কা চোপড়া, বিদ্যা বালন ও করিনা কাপুরদের নামও। শুধু অভিনেত্রী নয়, টেনিস সুন্দরী সানিয়া মির্জার সঙ্গে প্রেমের কথা শোনা যায় বলিউডের আনাচে-কানাচে।

জানা যায়, শাহিদ কাপুর ও সানিয়া মির্জার প্রথম আলাপ হয়েছিল এক বন্ধু জন্মদিনে। সেখান থেকেই শুরু বার্তালাপ। তরপর ধীরে ধীরে ঘনিষ্ঠতা বাড়তে থাকে শাহিদ-সানিয়ার।

২০০৯ সালে শুরু হয় দুই তারকার প্রেম পর্ব। দুজনকে একসঙ্গে একধিক পার্টিতে দেখা যেত। শোন যায় ‘কামিনে’ ছবির সেটে নাকি নাকি প্রায়শই যেতেন সনিয়া মির্জা।

এমনকী একান্তে সময় কাটাতে বেঙ্গালুরুর এক বিলাস বহুল হোটেলেও গিয়েছিলেন সানিয়া মির্জা ও শাহিদ কাপুর। কিন্তু হোটেলের এক কর্মী তাদের কথা ফাঁস করে দেয় বলে অভিযোগ।

প্রেম এতটা গভীরতায় পৌছেছিল য়ে নিজের কাজের বিষয়ে সানিয়ার সিদ্ধান্ত নিতে শুরু করেছিলেন শাহিদ। ক্রমশ সানিয়ার মির্জা ও শাহিদ কাপুররের দুজনের প্রতি নির্ভরতা বাড়ছিল।

করিনা কাপুরের সঙ্গে সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর য়ে আঘাত পেয়েছিলেন শাহিদ কাপুর, সানিয়া কাছাকাছি এসে সে ক্ষত অনেকটাই ভুলতে পেরেছিলেন বলি তারকা।

শুধু দেশেই নয় বিদেশের মাটিতেও শাহিত কাপুরের সঙ্গে পার্টিতে গিয়েছিলেন সানিয়া মির্জা। ব্যাঙ্ককে শাহিদের এক বন্ধুর পার্টিতেও একসঙ্গে গিয়েছিলেন দু’জনে। তাদের সম্পর্ক নিয়ে শোরগোল পড়ে যায় সর্বত্র।

শাহিদ-সানিয়াকে পারফেক্ট জুটি হিসেবে মেনে নিতে করেন অনেকেই। দুজনের সম্পর্কের রসায়নও প্রথম দিকে ভালই ছিল। কিন্তু ৬ মাসের বেশি টেকেনি তাদের সম্পর্ক।

কারণ হিসেবে জানা যায় একই সময়ে শাহিদের পাশাপাশি এক তেলুগু তারকার সঙ্গেও সম্পর্ক রেখেছিলেন সানিয়া। অপরদিকে, সানিয়া ঘনিষ্ঠ মহলে অভিযোগ করেছিলেন, তাকে ব্যবহার করেছিলেন শাহিদ। বেশি অধিকার বোধ দেখাতেন তিনি। একইসঙ্গে সানিয়াকে কোনও স্পেস দিতেন না সাহিদ।

শাহিদের সঙ্গে সম্পর্ক ভাঙার পরের বছরই পাক ক্রিকেটার শোয়েব মালিককে বিয়ে করেন সানিয়া মির্জা। ২০১৫ সালে শাহিদ বিয়ে করেন দিল্লির তরুণী মীরা রাজপুতকে। তবে শাহিদ-সানিয়ার প্রেম নিয়ে এখনও আলোচনা চলে বি টাউনে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*