দিনের পর দিন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর নগ্ন ভিডিও ধারণ করত প্রকৌশলী

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর সঙ্গে প্রেম-ঘনিষ্ঠতা। বিভিন্নভাবে ফুঁসলিয়ে নগ্ন ছবি ও ভিডিও ধারণ।

এরপর সেসব ছবি ও ভিডিও দেখিয়ে প্রেমিকার বাবার কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়া। দিনের পর দিন এভাবেই ওই ছাত্রী ও তার পরিবারকে ব্ল্যাকমেইল করত প্রকৌশলী পার্থ প্রতীম ঘোষ।

সম্প্রতি ওই প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা করেন ভুক্তভোগী ছাত্রী। ওই মামলায় জেল-জরিমানা হয় তার।

বৃহস্পতিবার দুপুরে আসামি পার্থ প্রতীম ঘোষকে সাত বছরের কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো দুই মাসের কারাদণ্ড দেন রাজশাহী মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক শাহ মোহাম্মাদ জাকির হাসান।

সাজাপ্রাপ্ত পার্থ প্রতীম ঘোষ নগরীর মতিহার থানার অক্ট্রয় মোড় এলাকার প্রবীর কুমারের ছেলে। সে রাজধানীর একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের আইটি বিভাগের কর্মকর্তা।

বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান জানান, ২০১৫ সালে ওই ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে পার্থ প্রতীম ঘোষ। এরপর ফুঁসলিয়ে তার নগ্ন ছবি ও ভিডিও ধারণ করে। সেই ছবি দেখিয়ে মেয়েটির বাবার কাছে এক লাখ টাকা দাবি করে। টাকা না দিলে ভিডিও ও ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়। ওই বছরের ২২ ডিসেম্বর ভুক্তভোগী ছাত্রী নগরীর বোয়ালিয়া থানায় পার্থ প্রতীম ঘোষের বিরুদ্ধে মামলা করে। সেই মামলায় আসামিকে সাত বছরের কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*