৯ বছরের ছোট অভিনেতার সঙ্গে যৌনতা ঐশ্বরিয়ার, রেগে আগুন বচ্চন পরিবার

লকডাউনের মধ্যে সকলেই গৃহবন্দি। বন্দি দশায় সময় কাটাতে সকলেই বিনোদনের রসদ খুঁজে নিচ্ছেন। এই সময়টাতেই বলি তারকাদের পুরোনো ভিডিও, গসিপ, ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

রিল থেকে রিয়েল তারকাদের পুরোটাই যেন গসিপে মোড়া। বলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী ঐশ্বর্য রাই বচ্চনও রয়েছেন সেই তালিকায়। বোল্ড ফোটোশুট থেকে হৃতিকের সঙ্গে অন্তরঙ্গতা, লিপ লক থেকে রণবীর কাপুরের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা সবেতেই তিনি লাইমলাইটে রয়েছেন।

সূত্র থেকে জানা গিয়েছিল ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের কারণে ব্যক্তিগত জীবনে সমস্যায় পড়েছিলেন ঐশ্বর্য। শুধু তাই নয়, বয়সে ৯ বছরের ছোট অভিনেতার সঙ্গে বউমার ঘনিষ্ঠতা মেনে নিতে পারেনি বচ্চন পরিবারও। পরিণতি শুনলে অবাক হবেন।

‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’ ছবিতে প্রথমবার অভিনয় করতে দেখা গিয়েছিল ঐশ্বর্য রাই বচ্চন ও রণবীর কাপুরকে। এই ছবিতেই নিজের চেয়ে ৯ বছরের ছোট রণবীর কাপুরের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে দেখা গিয়েছিল ঐশ্বর্যকে।

ছবির প্রচারের জন্যই একটি ফোটোশ্যুট করা হয়েছিল, যেখানে রণবীরের কাপুরের সঙ্গে অন্তরঙ্গ ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে নজর কেড়েছিলেন বচ্চন বধূ।

ফোটোশ্যুটে রণবীরের সঙ্গে ঐশ্বর্যর মাখোমাখো কেমিস্ট্রি সকলের নজর কেড়েছিল। ফোটোশ্যুটে রণবীরকে একটা পালঙ্কের উপর বসে থাকতে দেখা গিয়েছিল, এবং ঐশ্বর্যকে তার কোলে শুয়ে থাকতে দেখা যায়।

মা হওয়ার ৪ বছর পরে ঐশ্বর্যর এই বোল্ড অবতার দেখে সকলেই হতবাক হয়েছিল। নেটিজেনরা তার ভূয়ষী প্রশংসা করলেও বচ্চন বধূর এই হট অবতার দেখে অত্যন্ত ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন বচ্চন পরিবার।

একদিকে সাহসী ফোটোশ্যুট, অন্যদিকে বয়সে ৯ বছরের ছোট অভিনেতার সঙ্গে পুত্রবধূর অন্তরঙ্গ দৃশ্য দেখে দেখে রাগ সামলাতে পারেননি অমিতাভ ও জয়া বচ্চন।

রণবীরের কাপুরের সঙ্গে ঐশ্বর্যকে দেখে জয়া বচ্চন প্রকাশ্যে মন্তব্য করেছিলেন কোনও লজ্জা নেই। এমনকী ছবি থেকে ঘনিষ্ঠ মুহূর্ত বাদ দেওয়ারও কথা ভেবেছিলেন অমিতাভ-জয়া।

এর আগে এমন সাহসী চরিত্রে ঐশ্বর্যকে দেখা যায়নি। ঐশ্বর্যর মতে, ক্রিপ্টটি আর সাহসী হওয়া উচিত ছিল।

একটা সাক্ষাৎকারে রণবীর জানিয়েছিলেন, অন্তরঙ্গ দৃশ্যের সময় আমি লজ্জা পেতাম। ভয়ে হাত পা কাঁপত।মাঝে মধ্যে ঐশ্বর্যকে স্পর্শ করতেও দ্বিধা হতো। কিন্তু অভিনয়ের কারণে তা করতে বাধ্য করেছিলাম।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*