প্লাস্টিক সার্জারির সাহায্যে অতিরিক্ত বড় নিতম্ব ও বক্ষযুগল নোরার!


বিগ বস ১৪ নিয়ে এখন সংবাদ শিরোনাম ভরেই চলেছে। বিগ বস মানেই বিতর্কের আনাগোনা। বিতর্কিত অনুষ্ঠান, বিতর্কিত প্রতিযোগী, এমনকি খোদ সঞ্চালক সলমন খানও বেশ বিতর্কিত নিজের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে।

এই বিতর্কিত অনুষ্ঠানের সিজন ৯-এ নোরা ফাতেহি এসেছিলেন। এখন ইন্ডাস্ট্রির বম্বশেল তিনি। কার্ভি ফিগারে, হটনেসের সাতকাহন নিয়ে বেলি ডান্স, ট্যোয়ার্কিংয়ে এখন তাঁর নামই শীর্ষে। এই নোরা ফাতেহি নিজের সেক্সিনেসের জন্য পাপারাৎজির নজর কাড়েন।

তিনিই কেবল নিজের হটনেসের কারণেই সংবাদ শিরোনামে উঠে আসছেন না তিনি। তাঁর রূপের ভিন্নতা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

বিগ বস ৯-এ ওয়াইল্ড কার্ড এন্ট্রি হয়ে এসেছিলেন নোরা। সেই সময় থেকেই তিনি ধীরে ধীরে ভাইরাল হয়ে উঠছেন। বাহুবলী ছবিতে আইটেম নম্বরে নাচ করে বলিউডে ক্রমশ জায়গা করার চেষ্টা করছিলেন নোরা।

সেই সময়কার নোরা এবং এখনকার নোরার মধ্যে আকাশ পাতাল তফাত। চেহারায়, মুখে চারিদিকেই রয়েছে আমূল পরিবর্তন।

একাংশ নিন্দুকদের কথায়, প্লাস্টিক সার্জারির সাহায্য নিয়েছেন তিনি। আমেরিকান ট্রেন্ড অনুযায়ী, বাট ইমপ্লান্টও করিয়েছেন তিনি।

তাদের কথায়, নোরার চেহারার ধাঁচ এমন ছিলই না। তাঁর বক্ষযুগলও নাকি প্লাস্টিক সার্জারির দ্বারাই নতুন রূপ পেয়েছে।

ট্যোয়ার্কিং এবং বেলি ডান্সিংয়ের জন্যই কি এমন প্লাস্টিক সার্জারির সহায় হয়েছিলেন নোরা। উঠছে প্রশ্ন। তাঁর মুখেও সেই আগের ছোঁয়া নেই। ঠোঁট মোটা হয়ে গিয়েছে। গাল খানিক ফুলে গিয়েছে।

যার কারণে তাঁকে এবং পুরনো নোরাকে এখন চেনা মুশকিল হয়ে গিয়েছে। তবে ভক্তদের কাছে তিনি আজও অপরূপ সুন্দরী।


Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*