জায়েদ খানে অতিষ্ট শিল্পীরা, পদত্যাগ দাবিতে রাস্তায়


পরিচালক সমিতির নেতৃবৃন্দসহ জায়েদ খানের কর্মকাণ্ডে ইদানিং অনেকেই বিরক্ত প্রকাশ করে গণমাধ্যমে বক্তব্য দিয়েছেন।

অর্থাৎ এফডিসিতে জায়েদ খানের কাজকে কেউ আর সহজভাবে নিচ্ছেন না। একচেটিয়া আধিপত্য বিস্তারের অভিযোগও এসেছে। এসেছে জায়েদের ক্ষমতার উৎস সম্পর্কে অভিযোগ।

এরইমধ্যে আজ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছেন বঞ্চিত শিল্পীরা। মানববন্ধনে জায়েদ খানকে চলচ্চিত্র থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করে সুস্থধারার চলচ্চিত্র রক্ষার দাবি জানিয়েছেন বক্তারা।

বুধবার বেলা ১১টার দিকে এই মানববন্ধনে অংশ নেন জাভেদ পাটোয়ারি, সাদিয়া মির্জা, বেবি, পারভীন, ডেঞ্জার নাসিম, লিটনসহ বেশ কয়েকজন চলচ্চিত্র শিল্পী। এদের বেশিরভাগই শিল্পী সমিতির সদস্যপদ হারানো সদস্য। এদের সকলেরই দাবি, পদ ফিরিয়ে দিতে হবে এবং বর্তামান কমিটির প্রধান মিশা ও জায়েদকে পদত্যাগ করতে হবে।

সাদিয়া মির্জা তার বক্তব্যে বলেন, ‘সমিতি থেকে অবিলম্বে বিতর্কিত সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানকে পদত্যাগ করতে হবে। তারা যেটি করেছেন তা অন্যায়। আমাদের সদস্য পদ বাতিল করেছে এই কমিটি। অবিলম্বে এটিও ফিরিয়ে দিতে হবে। না হয় মিশা সওদাগর ও জায়েদ খানকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করা হবে।’

এর আগে একাধিকবার ‘বাধ্য করা হবে’ বললেও উল্টো জায়েদ খানই বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করে চলচ্চিত্রের প্রযোজক সমিতির কমিটি ভেঙে দিয়েছেন। আর এই বিষয়টি মানতে পারছেন না তারা। মানববন্ধনে জায়েদের ক্ষমতার উৎস নিয়ে প্রশ্ন তোলেন অনেকে।

নিজের কাজ প্রসঙ্গে এই শিল্পী জানান, তিনি ৬টি ছবিতে অভিনয় করেছেন। মুক্তির অপেক্ষায় আছে আরও কয়েকটি সিনেমা। কিন্তু মিশা ও জায়েদ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে সদস্য পদ বাতিল করেছে।

উপস্থিত আরও কয়েকজন এমন অভিযোগ করেন। তাদের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করে আসছেন খল অভিনেতা জামাল পাটোয়ারি, অভিনেতা শান আরাফসহ অনেকে।

গত ১৯ জুলাই মিশা-জায়েদের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেন শিল্পী সমিতির সদস্যপদ হারানো ১৮৪ সদস্য। এটি হয়েছিল বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনের (বিএফডিসি) সামনে। পাশাপাশি চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট ১৯টি সংগঠনও তাদের পদত্যাগ দাবি করে আসছে।

২০১৭-১৮ সালের শিল্পী সমিতির দ্বিবার্ষিক নির্বাচনে সমিতির মোট ভোটার সংখ্যা ছিল ৬২৪ জন। মিশা-জায়েদ প্যানেল নির্বাচিত হওয়ার পর এ তালিকা নেমে এসেছে ৪৪০ জনে।


Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*