বাস্তবে প্রেমিক-প্রেমিকা, পর্দায় বাবা-মেয়ে তারা


বলিউড তারকাদের প্রেম, বিয়ে, বিচ্ছেদের ঘটনা অনেক সময় সিনেমার গল্পকেও হার মানায়। অভিনেতা নানা পাটেকর ও অভিনেত্রী মনীষা কৈরালার প্রেম কাহিনি অনেকটা তেমনি।

বিবাহিত নানা পাটেকরের সঙ্গে প্রেম ও বিচ্ছেদ, পর্দায় তাদের বাবা-মেয়ের চরিত্রে অভিনয়— সব মিলিয়ে নব্বইয়ে দশকের বেশ আলোচনায় ছিলেন এই জুটি।

নেপালি সুন্দরী মনীষার সঙ্গে নানা পাটেকরের প্রেমের সম্পর্ক শুরু হয় ১৯৯৬ সালে ‘অগ্নিসাক্ষী’ সিনেমার সেটে। সেই সময় সবেমাত্র বিবেক মুসরানের সঙ্গে ব্রেকআপ হয়েছে মনীষার। কিছুদিনের মধ্যেই নানা পাটেকরের প্রেমে পড়েন এই অভিনেত্রী। এরপর সিনেমার শুটিং সেটে চলতে থাকে তাদের গোপন প্রেম।

‘অগ্নিসাক্ষী’র পর যখন এই জুটিকে নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে তখন সঞ্জয় লীলা বানসালির ‘খামোশি’ সিনেমায় অভিনয় করেন তারা। কিন্তু বাস্তবের প্রেমিক-প্রেমিকা পর্দায় বাবা-মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেন। তাতে অবশ্য দু’জনকে নিয়ে কানাকানি একটুও কমেনি। এমনকি সেই সময় মনীষার প্রতিবেশীদের বরাত দিয়ে খবর প্রকাশিত হয়— প্রায়ই সকালে মনীষার বাড়ি থেকে নানা পাটেকরকে বের হতে দেখা যেত।

এ প্রসঙ্গে সেই সময় এক সাক্ষাৎকারে নানা পাটেকর বলেন, ‘মনীষা প্রায়ই আমার মা ও ছেলের সঙ্গে দেখা করতে আসতো, তারাও তাকে আন্তরিকতার সঙ্গে গ্রহণ করেছে।’

কিন্তু এই প্রেমের সম্পর্কের মাঝেও দু’জনের ক্রোধের কারণে প্রায়ই তাদের ঝগড়া হতো। সহ-অভিনেতাদের সঙ্গে অন্তরঙ্গ দৃশ্য এবং পোশাকের জন্য এই অভিনেত্রীকে প্রায়ই কথা শোনাতেন নানা। মনোমালিন্যের কারণে তাদের মধ্যে কথাও বন্ধ হয়ে গিয়েছিল।

এদিকে স্ত্রীর কাছ থেকে আলাদা থাকলেও একবারে বিচ্ছেদ করেননি নানা। আবার মনীষাকেও বিয়ের পরিকল্পনা তার ছিল না। এরই মধ্যে হঠাৎ করেই অভিনেত্রী আয়েশা জুলকার সঙ্গে নানাকে বদ্ধ ঘরে অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখে ফেলেন মনীষা। এরপর তাদের ব্রেকআপ হয়।

ব্রেকআপ প্রসঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে নানা পাটেকর বলেন, ‘মনীষা খুবই স্পর্শকাতর অভিনেত্রী। তার বোঝা উচিত, কারো সঙ্গে প্রতিযোগিতার প্রয়োজন নেই। তার কাছে সবকিছুই আছে এবং প্রয়োজনের তুলনায় বেশি। সে নিজের সঙ্গে যা করছে তা দেখে আমি চোখের জল আটকে রাখতে পারি না। হয়তো তাকে নিয়ে বলার মতো আমার এখন কিছু নেই। ব্রেকআপ খুবই কঠিন একটি সময়। ব্যথা কি জিনিস এই সময় আপনি তা বুঝতে পারবেন। দয়া করে এ প্রসঙ্গে কথা বলবেন না। মনীষাকে আমার অনেক মনে পড়ে।’

তবে ব্রেকআপের পর তাদের জীবন থেমে থাকেনি। নানার পর ডিজে হুসানে, ক্রিসপিন কনরয়, সেসিল অ্যান্থনির সঙ্গে মনীষার প্রেমের গুঞ্জন শোনা গেছে। পরবর্তী সময়ে নেপালি ব্যবসায়ী সম্রাট দাহালকে বিয়ে করেন এই অভিনেত্রী। যদিও দুই বছরের মাথায় তাদের বিচ্ছেদ হয়। অন্যদিকে, আয়েশা জুলকার সঙ্গে লিভ টুগেদার শুরু করেন নানা পাটেকর। তবে জীবনের নানা চড়াই-উৎরাই পার করে স্ত্রী নীলকান্তির সঙ্গে আছেন এই অভিনেতা।


Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*