প্রেম করে দ্বিতীয় বিয়ে, সাত মাসেই গেল প্রাণ!


বিয়ের সাত মাসের মাথায় স্ত্রীকে খুনের অভিযোগ উঠেছে স্বামী মিম হোসেনের (৩০) বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার (০১ ডিসেম্বর) দিবাগত রাতে পাবনার সুজানগর পৌর সদরের মসজিদপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

প্রথম স্ত্রী ডিভোর্স দিয়ে চলে যাওয়ার পর প্রেম করে জাকিয়া সুলতানাকে (১৭) বিয়ে করেছিলেন মিম হোসেন। মিম হোসেন সুজানগর পৌর সদরের মসজিদপাড়া মহল্লার মন্তাজ আলীর ছেলে এবং জাকিয়া সুলতানা সদর উপজেলার সাদুল্লাপুর ইউনিয়নের পাটোয়া গ্রামের হাসান আলীর মেয়ে। তিনি দুবলিয়া ফজিলাতুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন।

জাকিয়া সুলতানার মা রাশিদা খাতুন বলেন, সাত মাস আগে মেয়ের সঙ্গে মিম হোসেনের বিয়ে হয়। তাদের প্রেমের সম্পর্ক হওয়ায় পারিবারিকভাবে বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের কয়েকদিন পর জাকিয়া জানতে পারে স্বামী মাদকাসক্ত। এ নিয়ে তাদের মধ্যে দাম্পত্য কলহ শুরু হয়। এসব নিয়ে প্রতিবাদ করলে জাকিয়াকে মারধর করতো মিম।

মঙ্গলবার দিবাগত রাতের কোনো একসময় জাকিয়াকে হত্যা করে মিম। জাকিয়াকে শ্বাসরোধে হত্যার পর তার মরদেহ বসতঘরের ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখা হয়।

স্থানীয়রা জানায়, জাকিয়াকে বিয়ের আগে আরেকটি বিয়ে করেছিলেন মিম হোসেন। কিন্তু মিম মাদকাসক্ত হওয়ায় তাকে ডিভোর্স দিয়ে চলে যান স্ত্রী। পরে জাকিয়াকে বিয়ে করেন মিম।

দুবলিয়া ফজিলাতুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক আব্দুল খালেক খাঁন বলেন, জাকিয়াকে হত্যার ঘটনায় বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা শোকাহত। জাকিয়া হত্যায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাই।

সুজানগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বদরুদ্দোজা বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ পাবনা জেনারলে হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন পাওয়ার পর জানা যাবে কিভাবে তার মৃত্যু হয়েছে। সে মোতাবেক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত স্বামী মিম হোসেন পলাতক। তাকে গ্রেফতার করা হবে।


Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*